কপালকুন্ডলা-বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় বই পিডিএফ ডাউনলোড

0
8

কপালকুন্ডলা বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় বই পিডিএফ ডাউনলোড

Book Detail  

Book/Note Nameকপালকুন্ডলা
Authorবঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়
Publisherনাঈম বুকস ইন্টারন্যাশনাল
Editions1st Published, 2011
Total pages73
CategoriesBook Download
PDF QualityHigh
Size4 MB
Downloading status FREE | Buy This Full Book

‘কপালকুণ্ডলা’ … হুম, ভাল লেগেছে! একটু প্রাচীন খটমটে বাংলা। কিন্তু এই দোষ তো আমি আর লেখককে দিতে পারি না। প্রায় দেড়শ বছর আগে ১৮৬৬ সালে প্রকাশিত একটি উপন্যাসের সাথে আমার যে ভাষাগত পার্থক্য তার দোষ লেখকের ঘাড়ে চাপানো কোনো কাজের কথা না। তাই উপন্যাসটির মূল সুর ধরতে আমার বেশ কিছু সময় লেগেছে এবং সুর ধরতে পারার পর ভাল লাগতে শুরু করেছে। চারটি খণ্ড এবং প্রতিটি খণ্ডে বেশ কয়েকটি পরিচ্ছদ নিয়ে লেখা উপন্যাসটি। ভাল লেগেছে প্রতিটি পরিচ্ছেদে যে ভাবটি রয়েছে, পরিচ্ছেদের শুরুতেই সেই ভাব নিয়ে বিভিন্ন কাব্যগ্রন্থ থেকে দু-চার লাইন কোট করার ভঙ্গিমাটি। [যদিও সংস্কৃত শ্লোকগুলো বুঝতে পারিনি]

প্রথম খণ্ডে খুঁজে পেলাম বঙ্কিমচন্দ্রের বিখ্যাত উক্তি, যে উক্তির ভাব-সম্প্রসারণ লেখেনি এমন কোনো বাংলা মাধ্যমে পড়া ছাত্র-ছাত্রী নেই।

“আত্মোপকারীকে বনবাসে বিসর্জন করা যাহাদিগের প্রকৃতি, তাহারা চিরকাল আত্মোপকারীকে বনবাসে দিবে – কিন্তু যতবার বনবাসিত করুক না কেন, পরের কাষ্ঠাহরণ করা যাহার স্বভাব, সে পুনর্বার পরের কাষ্ঠাহরণে যাইবে। তুমি অধম – তাই বলিয়া আমি উত্তম হইবো না কেন?”

গভীর সব কথাবার্তা থাকার পরও কিন্তু প্রথম খণ্ডের সুর বেশ খানিকটা ভৌতিক। যদিও পরবর্তীতে এটা মনস্তাত্ত্বিক উপন্যাসে রূপ নেয়।

ভাল লেগেছে বর্ণনার গভীরতা…

“তথাপি সকলে মৃত্যু নিকটে নিশ্চিত করিলেন। পুরুষেরা নিঃশব্দে দুর্গানাম জপ করিতে লাগিলেন, স্ত্রীলোকেরা সুর তুলিয়া বিভিন্ন শব্দবিন্যাসে কাঁদিতে লাগিল। একটি স্ত্রীলোক গঙ্গাসাগরে সন্তান বিসর্জন করিয়া আসিয়াছিল, ছেলে জলে দিয়া আর তুলিতে পারে নাই, – সেই কেবল কাঁদিল না।”

এই ছেলে বিসর্জন দেয়া মায়ের প্রয়োজন পড়েনি উপন্যাসের আর কোথাও। কিন্তু একটি ঝড়ের দৃশ্যে তার উপস্থিতি লেখকের গল্পবলায় এনে দেয় বিচিত্র ধরণের এক গভীরতা।

ভাল লেগেছে উপলব্ধির ঋদ্ধতা…
“হৃদয় স্নেহের আঁধার হওয়াতে অপর সকলের প্রতি স্নেহের আধিক্য জন্মিল; বিরক্তিজনকের প্রতি বিরাগ লাঘব হইলো; মানুষ্যমাত্র প্রেমের পাত্র হইলো; পৃথিবী সৎ কর্মের জন্য মাত্র সৃস্টা বোধ হইতে লাগিল; সকল সংসার সুন্দর বোধ হইতে লাগিল। প্রণয় এইরূপ! প্রণয় কর্কশকে মধুর করে, অসৎকে সৎ করে, অপূণ্যকে পুণ্যবান করে, অন্ধকারকে আলোকময় করে!”

ভাল লেগেছে লুৎফ-উন্নিসা ওরফে মতিবিবি ওরফে পদ্মাবতীর স্বাধীনচেতা ও দৃঢ় আত্মবিশ্বাস সম্পন্ন চরিত্রকে। ভাল লেগেছে তার ‘ভালবাসি’ বুঝতে পারার ক্ষমতাকে।

ভাল লেগেছে কপালকুণ্ডলার মানষিক স্বাধীনতাকে। এলোচুলের কপালকুণ্ডলা ফুল দিয়ে বিনুনি করা গৃহিণীর আড়ালে ঢাকা পড়লেও হারিয়ে যায় নি কখনো। ভাল লেগেছে তার ‘ভালবাসি না’ বুঝতে পারার ক্ষমতাকে।

ভাল লেগেছে নানা উৎস থেকে উৎসারিত গল্পের একত্রে মিলিত হবার আঙ্গিক কে।

তাহলে পাঁচ তারা নয় কেন? কারণ ভাল লাগেনি লেখকের তরফ থেকে লুৎফ-উন্নিসাকে ভিলেন বানাবার চেষ্টাকে। কেউ সাদা হলে কাউকে কালো হতে হবে এমন তো নয়। লেখকের এই গৎ বাঁধা সাধা-কালোর ধারণার মাঝে আটকে পড়ার জন্য একতারা কর্তন।

📝 সাইজঃ- 4 MB

📝 পৃষ্ঠা সংখ্যাঃ 73

বই সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে অনলাইন লাইভ প্রিভিউ 🕮 দেখে নিন তারপর সিদ্ধান্ত নিন ডাউনলোড করবেন কিনা।

Live Preview এখান থেকে Scroll করে দেখতে পারেন।

আরো পড়ুনঃ অডিটর ও জুনিয়র অডিটর পদের প্রশ্ন সমাধান পিডিএফ ডাউনলোড

download-pdf

Direct Download 

Click Here

👀 প্রয়োজনীয় মূর্হুতে 🔍খুঁজে পেতে শেয়ার করে রাখুন.! আপনার প্রিয় মানুষটিকে “send as message”এর মাধ্যমে শেয়ার করুন। হয়তো এই গুলো তার অনেক কাজে লাগবে এবং উপকারে আসবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here